২৩শে আগস্ট, ২০১৯ ইং | ৮ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাংলার মরমী গানের অমর স্রষ্টা হাছন রাজার রামপাশার জমিদার বাড়ী অবস্থান –

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর - ৩ - ২০১৬ | ৪: ০৩ অপরাহ্ণ | সংবাদটি 176 বার পঠিত

বিশ্বনাথ উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের রামপাশা গ্রামে মরমী গানের অমর স্রষ্টা দেওয়ান হাছন রাজার বাড়ীটি অবস্থিত । অত্র উপজেলার যে কয়টি প্রাচীন পুরোকীর্তি , কিংবদন্তি ও দর্শনীয় স্থান রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম প্রাচীন ও দর্শনীয় স্থান হচ্ছে এই বাড়ীটি । যা যা আছে – দেওয়ান হাছন রাজার বাড়ীটি প্রায় ৩০ একর জায়গার উপর নির্মিত হয়েছিল । বিশ্বনাথের রামপাশা বা
জারে এসে বামদিকে চোখ ফিরালে চোখ পড়বে হাছন রাজার আমলে নির্মিত বিশাল এক দিঘী। তারপর রয়েছে হাছন রাজার পারিবারিক গোরস্থান , মাদ্রাসা , মসজিদ ও শিক্ষানুরাগী দেওয়ান তালেবুর রাজা চৌধুরী স্মৃতি পাঠাগার । এরপর রয়েছে মুল বাড়ী ।বাড়ীর ঠিক মাঝামাঝি স্থানে রয়েছে প্রায় দেড়শ বছরের প্রাচীন দুতলা বৈঠকখানা । এর ডানদিকে অসম্পূর্ণ আরেকটি বৈঠকখানার পিলার ও ইটের গাঁথুনী রয়েছে এবং সদ্য নির্মিত একটি বৈঠকখানা সহ বাংলো ঘর রয়েছে । আর বামদিকে রয়েছে সদ্য নির্মিত একটি বাংলো । এটি দর্শনার্থীদের জন্য এখনো উম্মুক্ত হয়নি ।তারপর রয়েছে জমিদার বাড়ীর অন্দরমহল অংশ । সেই অংশে অন্দরমহল না থাকলেও অন্দরমহলের প্রাচীরের ধ্বংসাবেশ রয়েছে । বর্তমানে বাড়ীটির অন্দরমহল অংশটি চারভাগে বিভক্ত । এর একটি অংশে হাছন রাজার ৫ম প্রজন্ম সাদামাটা পাকাঘরে বসবাস করেন । তাদের কাছে উত্তরাধিকার হিসেবে প্রাপ্ত হাছন রাজার ব্যবহৃত তামার তৈরী বিশাল একটি ডেকসী ও কাঠের তৈরী একটি দরজা স্মৃতি হিসেবে তারা সযত্নে আগলে রেখেছেন বছরের পর বছর । বর্তমান অবস্থা – ধনাঢ্য এলাকা হিসেবে পরিচিত বিশ্বনাথের এই উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থানের জরাজীর্ন ভবন আর ঐতিহ্যবাহী এই বাড়ীটির দৈন্যদশা দেখে এখানে পরিদর্শনে আসা অনেক পর্যটককে মাঝে মধ্যে বিরুপ মন্তব্য করতে শুনা যায় । একথা সত্য যে বিশ্বনাথে প্রতিবৎসর প্রতিযোগিতা মূলকভাবে বাসা-বাড়ী , জমি-জমা ক্রয় করতে , মামলা-মোকাদ্দমাতে এবং বিলাসী জীবন যাপনে এ এলাকার অনেকেই অপ্রয়োজনে বিশাল অংকের অর্থ ব্যয় করে আসছেন । অথচ এলাকার কিছু সংখ্যক বিত্তবান ও প্রবাসীরা যদি দুই-তিন কোটি টাকা ব্যয় করে বিশ্বনাথের প্রাচীন এবং ঐতিহ্যবাহী এই বাড়ীটিকে পর্যটনের জন্য উপযোগী করে গড়ে তুলেন তাহলে তাদের জন্য এটা এমন কোন অসাধ্য কাজ নয়। শুধু প্রয়োজন একটি মহতি উদ্যোগ ।